স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

প্রচ্ছদ সারাদেশ

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলায় স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক গৃহবধূ (১৯)। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। এদের মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।




গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম মো. সোহেল (২৩)। তিনি কেরানীগঞ্জ থানার বাঘাপুর এলাকার বাসিন্দা। মামলার অন্য আসামিরা হলেন

সিরাজদিখান উপজেলার পলাশপুর এলাকার হিমেল (২০) ও মো. শামীম (২৫)।




পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রোববার বিকেলে স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে বের হন ওই নারী। তাঁরা উপজেলার একটি এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। এ সময় স্বামীকে আটকে রেখে মারধর করেন সোহেল, পলাশ ও শিমুল। পরে তিনজন মিলে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন। এ সময় স্বামীর চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে ঘটনাস্থল থেকে সোহেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।




সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, রোববার রাতে গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন। একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি দুজন পালিয়ে যাওয়ায় তাঁদের গ্রেপ্তার করা যায়নি। তাঁদের ধরতে অভিযান চলছে। গ্রেপ্তার সোহেলকে সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে।



11 thoughts on “স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

  1. An impressive share! I have just forwarded this onto a colleague who had been doing a little homework on this. And he in fact ordered me dinner because I stumbled upon it for him… lol. So let me reword this…. Thanks for the meal!! But yeah, thanx for spending time to talk about this matter here on your internet site.

  2. I just could not depart your website prior to suggesting that I extremely enjoyed the standard information a person provide for your visitors? Is gonna be back often to check up on new posts

  3. Magnificent beat ! I wish to apprentice while you amend your web site, how can i subscribe for a blog site? The account aided me a acceptable deal. I had been a little bit acquainted of this your broadcast offered bright clear concept

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *